বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd August ২০১৫

প্রশাসন শাখা

বহুতল ভবনের অনাপত্তি ছাড়পত্র প্রদান

বহুতল ভবনে অগ্নি প্রতিরোধ সংক্রান্ত ছাড়পত্র প্রদানের নিয়মাবলী

ক)   বহুতল ভবন ছাড়পত্র প্রত্যাশী ব্যক্তি বা সংস্থা নিজ নিজ প্যাড/সাদা কাগজে বহুতল ভবন নির্মাণ উেেদ্দশ্যে অগ্নি প্রতিরোধ, অগ্নি নির্বাপন ও অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ে ছাড়পত্র গ্রহণের লক্ষ্যে মহা-মহাপরিচালক মহোদয়ের বরাবর আবেদন করবেন। যা এককেন্দ্রিক সেবা কেন্দ্রে/ডাকযোগে জমা দেয়া যাবে।

খ)   আবেদন পত্রের সাথে নিম্নে বর্নিত কাগজপত্র সংযুক্ত করতে হবে।

  •   লে আউট প্ল্যান, সাইড প্লান, লোকেশন প্ল্যান    ৪ কপি করে।
  •   ফায়ার ফাইটিং সেফটি প্ল্যান ৪ কপি ।
  •   জমির মালিকানা সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র  ১ সেট।
  •   জমির প্লট সংক্রান্ত তথ্য ১ কপি।


গ)   আবেদনপত্র গ্রহনের সময় প্রাথমিকভাবে জমাকৃত কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা হয়। বাছাই করার সময় কোন ত্রুটি পাওয়া গেলে তা সংশোধনের জন্য ফেরত প্রদান করা হয়। ত্রুটি না থাকলে আবেদনপত্রটি গ্রহন করে রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করা হয়  এবং পরবর্তী কার্যের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরন করা হয়।
ঘ)   আবেদন পত্রটি গৃহীত হওয়ার পর পরবর্তী ০৩ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ভবন নির্মানের স্থানটি সরেজমিনে পরিদর্শন করে BNBC (Bangladesh National Building Code)  শর্ত সমূহ অনুযায়ী সঠিকতা পরীক্ষাকরতঃ পরিদর্শন রিপোর্ট প্রদানের জন্য একটি কমিটি গঠন করবেন।
ঙ)   আদেশ প্রাপ্তির ০৩ কার্যদিবসের মধ্যে পরিদর্শন কমিটি ভবনের স্থান/ভবনটি পরিদর্শন করে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন দাখিল করবেন।
চ)   কর্তৃপক্ষ পরিদর্শন প্রতিবেদন পাওয়ার পর কোন জটিলতা না থাকলে পরবর্তী ০৩ কার্য দিবসের মধ্যে আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত কাগজপত্র/ফায়ার সেফটি নক্সা যাচাই বাছাই করার নিমিত্তে নির্ধারিত কমিটি বরাবর উপস্থাপন করবেন।
ছ)   সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রের/ ফায়ার সেফটি নক্সায় কোন ত্রুটি না থাকলে নির্ধারিত ছাড়পত্র কমিটি পরবর্তী ০৩ কার্যদিবসের মধ্যে ছাড়পত্রের বিষয়ে সম্মতি জ্ঞাপন করবেন।
জ)  কমিটি কর্তৃক সম্মতি রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ০৩ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে শর্তসাপেক্ষে ছাড়পত্র প্রদান করা হবে। উক্ত ছাড়পত্র ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার হতে সরবারাহ করা হবে।
ঝ)   আবেদন পত্রের সাথে সংশ্লিষ্ট কাগজ পত্র ছাড়পত্র/ফায়ার সেফটি নক্সা কমিটি কর্তৃক যাচাই বাছাইয়ান্তে কোন ত্রুটি পাওয়া গেলে তা পরবর্তী ০৩ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা সংস্থাকে ত্রুটি সমূহ উল্লেখ করে জানিয়ে দেয়া হবে  এবং সংশোধনের জন্য ১৫ দিনের সময় দিয়ে পত্র দেয়া হবে।
ঞ)   ক্রটি সমূহ সমাধান করে সংশ্লিষ্ট আবেদনকারী পুনরায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ মহাপরিচালক মহোদয় বরাবর আবেদন করবেন।
ট)  পুনঃ আবেদন প্রাপ্তির পর আবেদনের সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে সঠিক পাওয়া গেলে  এবং উপরোক্ত নিয়ম মোতাবেক নির্ধারিত সময়ে শর্ত সাপেক্ষে ছাড়পত্র প্রদান করা হবে। 
ঠ)  ভবন নির্মান সম্পন্ন হলে  ভবনে বসবাসের পূর্বে পুনরায় মহাপরিচালক বরাবর বসবাসযোগ্য (Occupancy) সনদের জন্য আবেদন করতে হবে।
ড)   আবেদন প্রাপ্তির পর মহাপরিচালক ভবনটি BNBC শর্তানুযায়ী নির্মিত হয়েছে কিনা তা পরীক্ষার জন্য অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তাকে ভবনটি পরিদর্শনের জন্য প্রেরন করবেন এবং পরিদর্শন রিপোর্ট সন্তোষজন হলে মহাপরিচালক ভবনটি বসবাসযোগ্য (Occupancy) সনদ পত্র প্রদান করবেন।

 

 

সিএনজি ফিলিং স্টেশন

সিএনজি ফিলিং স্টেশন/ বৈদ্যুতিক সাব স্টেশনের ছাড়পত্র দেয়ার নিয়মাবলি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র।

ক) প্রতিষ্ঠানের প্যাডে/সাদা কাগজে চাহিত সেবা প্রাপ্তি আবেদন।
খ) প্রতিষ্ঠা/ভবনের অনুমোদিত নক্সা বা লে আউট প্লানের সফট কপি।
গ) ভাড়ার চুক্তিপত্র/ মালিকানার স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র।
ঘ) পৌরসভা/ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কর্তৃক দেয় ট্রেড লাইসেন্স ও অনাপত্তি পত্র।
ঙ) উপরোক্ত ডকুমেন্টস এর কপি সমূহ প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক সত্যায়ন পূর্বক জমা দিতে হবে।
নিয়মাবলি

ক) প্রতিষ্ঠানের প্যাডে/সাদা কাগজে আবেদন পত্রের সাথে প্রতিষ্ঠান/প্রস্তাবিত বহুতল ভবনের নক্সা/ লে-আউট প্ল্যানের সফট কপি এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট জেলার সহকারী পরিচালকের দপ্তরের এককেন্দ্রিক সেবা কেন্দ্রে জমা দিতে হবে।
খ) আবেদনপত্র গৃহীত হওয়ার পরবর্তী ০৫ ( পাঁচ) কার্যদিবসের মধ্যে কর্তৃপক্ষ একজন কর্মকর্তাকে সিএসজি ফিলিং স্টেশনের স্থান/বৈদ্যুতিক সাব স্টেশন স্থাপনের স্থান/ভবনটি সরেজমিনে পরিদর্শন করার জন্য আদেশ প্রদান করবেন।
গ) আদেশ প্রাপ্তির পরবর্তী ০৩ (তিন) কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা সিএনজি ফিলিং স্টেশনের স্থান/বৈদ্যুতিক সাব স্টেশন স্থাপনের স্থান/ভবনটি; পরিদর্শনের প্রতিবেদন উপর্যুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট দাখিল করবেন।
ঘ) আবেদন প্রাপ্তির পর ত্রুটি না থাকলে সর্ব্বোচ্য ১০ (দশ) কার্যদিবসের মধ্যে সহকারী পরিচালক আবেদনকৃত ছাড়পত্র ইস্যু করে এককেন্দ্রিক সেবা কেন্দ্রে ( ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার) এ জমা দিবেন।

ঙ) সিএনজি ফিংি স্টেশনের স্থান/বৈদ্যুতিক সাব-স্টেশন স্থাপনের স্থান/প্রস্তাবিত ভবনটি পরিদর্শনে কোন ক্রটি পরিলক্ষিত হলে ক্রটি সংশোধন বা কারণ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ১৫ (পনের) দিনের সময় দিয়ে আবেদনকারী বরাবর পত্র জারী করবেন ।

চ) ক্রটিসমূহ সমাধানের পর বা শর্ত পূরণের পর সিএনজি ফিলিং স্টেশনের স্থান/বৈদ্যুতিক সাব-স্টেশন স্থাপনের স্থান/ভবনটি মালিক কর্তৃক পুনরায় সংশ্লিষ্ট সহকারী পরিচালক/উপ-পরিচালক বরাবর অবগতি পত্র দিতে হবে।
ছ) শর্ত পূরণের বা ক্রটিসমূহ সমাধানের অবগতি পত্র প্রাপ্তির ০৩ (তিন) কার্য দিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা উল্লেখিত সিএনজি ফিলিং স্টেশনের স্থান/বৈদ্যুতিক সাব-স্টেশন স্থাপনের স্থান/ভবনটি পূনরায় পরিদর্শনে যাবেন।

জ) কোন ক্রটি না থাকলে পরবর্তী ০৩ (তিন) কার্য দিবসের মধ্যে সিএনজি ফিলিং স্টেশনের/বৈদ্যুতিক সাব-স্টেশন/ভবন নির্মাণের ছাড়পত্র প্রদান করতে হবে।

আবেদন জমা ও ছাড়পত্র গ্রহণ ঃ

প্রতিষ্ঠানের পরিচয় বহনকারী কর্মকর্তা, সমিতির পরিচয় বহনকারী কর্মকর্তা বা প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তিই কেবল প্রাপ্তি স্বীকার মূলে ছাড়পত্রের জন্য আবেদন জমা ও ছাড়পত্র গ্রহণ করতে পারবেন। অতপর সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রসহ আবেদনপত্র জমা দিয়ে ডিউটি অফিসারের নিকট হতে জমা রশিদ (সংযুক্তি “ক” গ্রহণ করবেন। ডিউটি অফিসার জমা রশিদ সরবরাহ করবে এবং সংশ্লিষ্ঠ রেজিষ্ট্রারে (সংযুক্তি “ঙ”) পূরণ করবেন।

পাওয়ার স্টেশন ছাড়পত্র

বৈদ্যুতিক সাব স্টেশনের ছাড়পত্র দেয়ার নিয়মাবলি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র।

ক) প্রতিষ্ঠানের প্যাডে/সাদা কাগজে চাহিত সেবা প্রাপ্তি আবেদন।
খ) প্রতিষ্ঠা/ভবনের অনুমোদিত লে আউট প্লানের  কপি।
গ) ভাড়ার চুক্তিপত্র/ মালিকানার স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র।
ঘ) পৌরসভা/ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কর্তৃক দেয় ট্রেড লাইসেন্স ও অনাপত্তি পত্র।
ঙ) উপরোক্ত ডকুমেন্টস এর কপি সমূহ প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক সত্যায়ন পূর্বক জমা দিতে হবে।

আবেদন জমা ও ছাড়পত্র গ্রহণ ঃ

প্রতিষ্ঠানের পরিচয় বহনকারী কর্মকর্তা, সমিতির পরিচয় বহনকারী কর্মকর্তা বা প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তিই কেবল প্রাপ্তি স্বীকার মূলে ছাড়পত্রের জন্য আবেদন জমা ও ছাড়পত্র গ্রহণ করতে পারবেন। অতপর সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রসহ আবেদনপত্র জমা দিয়ে ডিউটি অফিসারের নিকট হতে জমা রশিদ (সংযুক্তি “ক” গ্রহণ করবেন। ডিউটি অফিসার জমা রশিদ সরবরাহ করবে এবং সংশ্লিষ্ঠ রেজিষ্ট্রারে (সংযুক্তি “ঙ”) পূরণ করবেন।

ফায়ার লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন

নির্ধারিত আবেদন ফরম পূরন করে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সহ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর ওয়ানস্টপ সার্ভিসে সেন্টারে প্রেরন। ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার হতে আবেদন ফরম ও ডকুমেন্টস সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর  এর নিকট প্রেরন করা হয়। সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর আবেদনকারী প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্র যাচাই পূর্বক সরেজমিনে আবেদনকারী প্রতিষ্ঠানের এর ফায়ার সেফটি, ইভাকুয়েশন প্লান ইত্যাদি পরিদর্শনের করেন। ফায়ার ফাইটিং সরঞ্জামাদি স্থাপন, ফায়ার সেফটি ও ইভাকুয়েশন প্ল্যান ইত্যাদি বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন। নির্দেশনা মোতাবেক সমস্ত শর্তাবলী পূরনের পর বিধি মোতাবেক ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর এসেসমেন্ট সম্পন্ন করে নির্ধারিত লাইসেন্স ফি নির্ধারিত কোডে ব্যাংক চালানের মাধ্যমে প্রদান করার অনুমতির জন্য ডিমান্ড নোট ইস্যুর জন্য সংশ্লিষ্ট ডিএডি/এডি/ডিডি বরাবর সুপারিশ করেন। ডিমান্ড নোট পাওয়ার পর সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত লাইসেন্স ফি  ০৩ কার্য দিবসের মধ্যে ব্যাংক চালানের মাধ্যমে জমা প্রদান পূর্বক চালানের মূল কপি সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর এর নিকট প্রেরন করতে হয়।
ডিমান্ড নোটের শর্তাবলী সঠিক ভাবে পূরন করা হয়েছে কিনা তা যাচাই করার জন্য ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি পুনরায় পরিদর্শন করে এবং সমস্ত নির্দেশনাবলী সঠিক পূরন হয়ে থাকলে লাইসেন্স ইস্যুর পরবর্তী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়। ডিমান্ড নোটে উল্লেখিত শতাবলী পূরন করলে ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর লাইসেন্স ফরম পূরন করে উপসহকারী পরিচালক/সহকারী পরিচালক/উপ পরিচালক কর্তৃক লাএসেন্স ইস্যুর কাজ সম্পন্ন করে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে লাইসেন্সটি গ্রাহককের নিকট হস্তান্তর করা হয়।
যদি ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি সরেজমিনে পরিদর্শন করে লাইসেন্সের শর্তাবলী সঠিক ভাবে বিদ্যমান না পান তবে পুনরায় চিঠি ইস্যু করে শর্তাবলী পূরনের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন এবং সঠিক ভাবে নিদেশনা মোতাবেক শর্তাবলী পুরন করলে প্রতিষ্ঠানটিকে ফায়ার লাইসন্সে প্রদান করা হয়।

লাইসেন্স নবায়ন পদ্ধতি

নির্ধারিত লাইসেন্স নবায়ন ফি চালানের মাধ্যমে ব্যাংকে জমা দেওয়ার পর চালান ও লাইসেন্স এর মূল কপি ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারে জমা দিয়ে ডিউটি অফিসারের নিকট হতে জমা রশিদ গ্রহন করেন । ডিউটি অফিসার লাইসেন্স ও চালানের মূল কপি রেজিস্ট্রারে লিপিবদ্ধ করেন এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর এর নিকট ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার হতে চালান ও লাইসেন্স এর মূল কপি প্রেরন করা হয়। সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি সরেজমিনে পরিদর্শন পূর্বক ফায়ার সেফটি ব্যবস্থা ও আনুষঙ্গিক শর্তাবলী বিদ্যমান আছে কিনা তা নিশ্চিত হবেন। যদি পরিদর্শন করে ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি সরেজমিনে পরিদর্শন পূর্বক  লাইসেন্সের শর্তাবলী সন্তোষজনক ভাবে বিদ্যমান  তবে লাইসেন্সটি নবায়ন করনে। যদি  সংশ্লিষ্ট এলাকার ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি সরেজমিনে পরিদর্শন পূর্বক  লাইসেন্সের শর্তাবলী সন্তোষজনক ভাবে বিদ্যমান না থাকে  এবং লাইসেন্সটি নবায়ন অযোগ্য বলে মনে করেন।  তবে নবায়ন অযোগ্যের কারন উল্লেখ পূর্বক তিনি প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের বরাবর সঠিক ভাবে বাস্তবায়নের জন্য ১৫দিন সময় প্রদান করে লাইসেন্সটি নবায়ন করার জন্য পত্র জারি করবেন। যদি ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শন শেষে রিএসেসমেন্ট এর প্রয়োজন মনে করেন তবে তিনি তা করে লাইসেন্স ফি পুননির্ধারন করে সেমতে ব্যবস্থা গ্রহন পূর্বক লাইসেন্স নবায়ন করেন।

কল্যাণ তহবিল শাখা

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স

     কর্মকর্তা কর্মচারী কল্যাণ তহবিল।

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সমন্বয়ে ১লা জুলাই ১৯৮৪ খ্রিঃ সালে “বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সির্ভিল ডিফেন্স বিভাগীয় কল্যাণ তহবিল” নামে একটি তহবিল গঠন করা হয়। পরবর্তীতে ২৪-০৩-১০ খ্রিঃ তারিখে উক্ত তহবিল “বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সির্ভিল ডিফেন্স কর্মকর্তা ও কর্মচারী কল্যাণ তহবিল ” নামে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রয়নালয় কর্তৃক অনুমোদিত হয়। কেন্দ্রীয়, বিভাগীয় ও জেলা নিবার্হী কমিটির দ্বারা এ তহবিল  পরিচালিত হয়। এ তহবিলের সকল প্রকার লেনদেন ব্যাংকের মাধ্যমে হয়ে থাকে। উক্ত তহবিলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিবের যৌথ স্বাক্ষরে ব্যাংকের হিসাব পরিচালিত হয়। কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ চাকুরীতে যোগদানের পর নিধারিত ফরম পূরণের মাধ্যমে হিসাব নম্বর প্রাপ্তির পর এ তহবিলের সদস্য পদ লাভ করেন। সকল কর্মকর্তা কর্মচারী এ তহবিলের সদস্য হওয়া বাধ্যতা মূলক। কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নির্ধারিত মাসিক চাঁদা ব্যাংকে রক্ষিত অর্থ হতে প্রাপ্ত লভ্যাংশ, নির্বাহী কমিটি কর্তৃক সংগৃহীত বা প্রাপ্ত অনুদান ও সদস্যদেরকে দেওয়া ঋণ হতে প্রাপ্ত লভ্যাংশ উক্ত তহবিল গঠনের মূল উৎস । প্রত্যেক আয়ন ব্যয়ন  কর্মকর্তা সদস্যদের মাসিক চাঁদা আদায় করে অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কেন্দ্রীয় ভাবে ব্যাংকে জমা প্রদান করেন। ইহা মূলত একটি কল্যাণ মূলক তহবিল। এ তহবিল হতে সদস্যগণ নিম্নলিখিত সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে থাকেন।


(১)    সদস্যগণ দায়িত্বরত অবস্থায় নিহত হলে তার পরিবারকে এককালীন সর্বোচ্চ -১,০০০০০/- (এক লক্ষ) টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান।

(২)    অসুস্থ/আহত হলে এককালীন সর্বোচ্চ- ৫০,০০০/- (পঞ্চাশ হাজার ) টাকা অনুদান প্রদান।
(৩)    সদস্য/পরিবার বর্গের চিকিৎসা জনিত কারণে সর্বোচ্চ- ২০,০০০/-(বিশ হাজার ) টাকা অনুদান প্রদান।

(৪)    সদস্যদের মেধাবী সন্তানদের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির বিবেচনা মতো বাস্তবভিক্তিক এককালীন/বার্ষিক বৃত্তি প্রদান।


(৫)    স্বল্প লভ্যাংশের ভিক্তিতে আর্থ সামাজিক উন্নয়নে নিজস্ব উদ্যোগে গৃহিত ক্ষুদ্র প্রকল্পের জন্য ঋণ প্রদান।
(৬)    কর্মকর্তা/কর্মচারীদের কাজের অগ্রগতি ও নির্ধারিত কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ল্যাপটপ ক্রয়ের জন্য ঋণের ব্যবস্থা প্রদান।

 (৭)    চাকুরীতে কোন সদস্য অবসর/অব্যাহতি গ্রহণ করলে বা মৃত্যুবরণ করলে নিম্নলিখিত হারে লভ্যাংশসহ জমাকৃত অর্থ ফেরত প্রদান। চাকুরীকাল ৫ বছর পর্যন্ত মূল টাকাসহ ১.৫০গুন। ১০ বছর পর্যন্ত মূল টাকাসহ ২.০০ গুন। ২০ বছর পর্যন্ত মূল টাকাসহ ৩.০০ গুন। ২০ বছরের উর্ধ্বে হলে মূল টাকাসহ ৪.০০ গুন টাকা ফেরত প্রদান করা হয়।

(৮)    কোন সদস্য মৃত্যুবরণ করলে এ তহবিল হতে দাফন-কাফন বাবদ সাহায্য প্রদান।
বর্তমানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগের আধুনিকায়নের সাথে সাথে উক্ত কল্যাণ তহবিলের আধুনিকায়নের লক্ষ্যে উক্ত তহবিলের হিসাব-নিকাশ ও সদস্যের হিসাবসহ উহার যাবতীয় তথ্য সংরক্ষণের জন্য একটি ডাটাবেজ সফটাওয়্যার তৈরি করা হয়েছে। উক্ত সফ্টওয়্যারে সদস্যদের পূর্ণাঙ্গ তথ্য সম্বলিত ডাটা এন্টি করা হচ্ছে। কোন সদস্যের মনোনীত ব্যক্তি/নমিনীর নাম ও সন্তান সন্ততির তথ্যাদি চাকুরীতে যোগদান, পদোন্নতি, জমাকৃত অর্থ ইত্যাদি উক্ত সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে অবগত হওয়া যাবে।

এই তহবিল হতে সদস্যদের আবাসিক প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষে প্রত্যেক বিভাগীয় শহরে সদস্যদের মধ্যে প্লট বরাদ্দের জন্য জমি ক্রয়ের প্রক্রিয়া চলছে। তাছাড়া লিজ অথবা ক্রয়ের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মার্কেট তৈরি/দোকানপাট নির্মাণ করে ভাড়া প্রদানের পরিকল্পনা রয়েছে।
এ তহবিলের সুষ্ট পরিচালনার লক্ষ্যে বার্ষিক অডিট ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। এ তহবিলের আর্থিক লেনদেনর সাথে সম্পৃর্ক্ত কোন কর্মকর্তা/কর্মচারী কোন প্রকার আয়ন/তহবিল তছরূপ/আতœসাৎ ইত্যাদির সাথে সম্পৃক্ত হলে মহাপরিচালক তথা কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতির অনুমোদন ক্রমে তার বিরুদ্ধে ১৯৮৫ সালের সরকারী কর্মচারী শৃঙ্খলা ও আপিল বিধি মোতাবেক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা এবং প্রয়োজনে ফৌজদারী মামলা গ্রহণ করা হবে।

  কল্যাণ তহবিলের সদস্যদের নাম ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী ডাটাবেজ সফটওয়্যারে এন্ট্রি করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য নির্ধারিত ফরমে পূরন করে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জমা দিতে হয়। সদস্যগন এই ফরমটি ওয়েব সাইট হতে ডাউনলোড করে পূরন করতে পারবেন।
এছাড়াও চিকিৎসা অনুদান, বিবাহ অনুদান ও ঋণ পাওয়ার আবেদন ফরমও ওয়েব সাইট হতে ডাউনলোড করে পূরন করতে পারবেন।


Share with :